দুই সাংবাদিককে কিশোর গ্যাংয়ের হত্যার হুমকি

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলার দুলারহাট থানার আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে সম্পত্তি দখল নিয়ে দুই সাংবাদিককে প্রকাশ্যে হত্যার হুমকি দিয়েছে স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী বাহিনী ও কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা। অবরুদ্ধ করে রেখেছে দুই সাংবাদিকের পরিবারকে। এতে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে দুই তাদের পরিবার।

এ ঘটনায় সাংবাদিক নোমান বাদী হয়ে শনিবার (২৪ জুলাই) দুলারহাট থানায় একটি সাধারন ডায়রি করেন।

এর আগে গত ২০ জুলাই দুলারহাট থানার আহাম্মদপুর ইউনিয়নের ফরিদাবাদ গ্রামের ৩নং ওয়ার্ডে সাংবাদিক নোমান ও সাংবাদিক সিরাজুল ইসলামকে একই এলাকার মতিন মাঝি ও হানিফ গ্রুপের সন্ত্রাসী বাহিনী এবং তাদের ভাড়া করা ওই এলাকার কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা মিলে দুই সাংবাদিকের পিতার জমি দখল নিয়ে তাদের দিকে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তেরে আসে ও হত্যার হুমকি দেয়।

সাংবাদিক নোমান জাতীয় দৈনিক আমার সংবাদ চরফ্যাসন উপজেলা প্রতিনিধি ও মোঃ সিরাজুল ইসলাম জাতীয় দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিন চরফ্যাসন উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

সাংবাদিক নোমান ও সিরাজুল ইসলাম জানান, ২০ শে জুলাই স্থানীয় সন্ত্রাসী গ্রুপের মতিন মাঝি, হানিফের নেতৃত্বে কিশোর গ্যাং বাহিনী পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে তাদের পিতার বাগানের দুটি অংশ দখল করার উদ্দেশ্য জালের বেড়া দেয় এবং জোর পূর্বক তাদের অংশের বাগান থেকে নারিকেল পারে। এ সময় সিরাজুল ইসলাম বাঁধা দেয় এবং নোমান তাদের এসব কর্মকান্ডের ছবি তুলতে গেলে অভিযুক্ত হান্নান অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে একপর্যায়ে হান্নান তাকে খুন করার উদ্দেশ্য শাবল নিয়ে তেড়ে আসে।

সাংবাদিকের পরিবারকে হামলার চেষ্টা। ছবি- বার্তা বাজার

সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম গালমন্দ করার কারণ জিজ্ঞেস করতে গেলে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা দেশীয় অস্ত্র ও শাবল নিয়ে দুই সাংবাদিকসহ তাদের পরিবার কে খুন করার উদ্দেশ্য তেড়ে আসে। দুই সাংবাদিক ও পরিবারের সদস্যরা ওই কিশোর গ্যাংয়ের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য নিজ ঘরে আশ্রয় নেয়। কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা নোমান ও সিরাজকেকে বাহিরে বের হতে বলে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দেয়। ওই দিন রাত ৮ টায় সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম ও তার ভাই ও বাবা মসজিদে নামাজ পড়াকালীন সময় তাদেরকে অবরুদ্ধ করে রাখে। মসজিদ থেকে বের হলে খুন করার হুমকি দেয়। রাত ১০ টার দিকে তাদের বাড়িতে গিয়ে তাদের পরিবারকে আবারো হত্যার হুমকি দেয়।

অভিযুক্তরা হলেন, মতিন মাঝি (৫০), মোঃ হানিফ(৪৫), মোঃ এমরান(২২), মোঃ ফারুক(৪৫), মোঃ হিরন(২৫), মোঃ হান্নান(২৩), মোঃ শরীফ(২০), মোঃ মিছির(৪০), মোঃ শামিম(১৯), মোঃ ফরহাদ(২০) ও আল আমিন(২১)।

অভেযোগ রয়েছে, অভিযুক্তদের মধ্যে হিরন, হান্নান, শামিম, ফরহাদ ও আল-আমিন এরা কিশোর গ্যাং এর সাথে জড়িত। এরা এলাকায় সংঘবদ্ধ হয়ে কিশোর গ্যাং গড়ে তুলছে।

মতিন, হানিফ, ফারুক ও মিছির এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে আসছে। মতিন-হানিফের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। এরা এলাকায় বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত।

দুলারহাট থানার ওসি মুরাদ হোসেন বার্তা বাজারকে জানান, এ ঘটনায় সাংবাদিক নোমান বাদী হয়ে থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছে। এস আই লেলিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এবং অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরিফ হোসেন/বার্তা বাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর