আজ শনিবার সকাল ৭:০৯, ২১শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৬ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৩০শে মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী

নতুন চুক্তিতে রিয়ালে জিদানের বেতন দ্বিগুণ

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : আগস্ট ১২, ২০১৭ , ১১:৩৪ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : খেলাধুলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

রিয়াল মাদ্রিদকে ছয়টি শিরোপা জিতিয়েছেন জিনেদিন জিদান মাত্র ২০ মাসের মধ্যে।  রিয়ালের ১১৫ বছরের ইতিহাসে মাত্র দেড় বছর সময়ে সে চতুর্থ সফল কোচ নির্বাচিত হয়েছে।   তাই রিয়াল জিদানকে পেতে চায় দীর্ঘসময়ের জন্য।  রিয়ালে অনেক দিন থাকতে চান জিদান নিজেও।  ফরাসি কিংবদন্তির মনের আশা এবার পূরণ হচ্ছে।  দ্বিগুণ বেতনে চুক্তি নবায়ন হচ্ছে জিদানের।

এএফপি জানিয়েছে, শিগগিরই রিয়ালে তাঁর চুক্তির মেয়াদ বাড়ছে।  তবে স্প্যানিশ গণমাধ্যম এএস জানিয়েছে, চুক্তি এর মধ্যেই হয়ে গেছে।  ইসকো চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর পরদিন ‘আরও তিন বছরের’ চুক্তিপত্রে সই করেছেন জিদান।  রিয়ালের এক সূত্র খবরটি নিশ্চিত করেছে এএসকে।  সূত্র জানায়, ‘ইসকোর ক্ষেত্রে যেটা ঘটেছে, আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্য সঠিক সময়ের অপেক্ষায় ছিল রিয়াল।  কিন্তু জিদান নতুন চুক্তি করতে সম্মত হওয়ার পর থেকেই ব্যাপারটি অফিশিয়াল।  দুই নয়, তিন বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করতে পেরে জিদান আনন্দিত।  ক্লাব সভাপতি তাঁর প্রতি যে আস্থা দেখাচ্ছেন, এটা বড় করে দেখছেন জিদান। ’
স্প্যানিশ গণমাধ্যমে এর আগে খবর বেরিয়েছিল, জিদানের সঙ্গে দুই বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন করতে পারে রিয়াল।  এবার এএস-এর বরাত দিয়ে এএফপিও জানিয়েছে, শিগগিরই কোচের চুক্তি তিন বছরের জন্য নবায়ন করবে রিয়াল।  নতুন চুক্তিতে ২০২০ সাল পর্যন্ত রিয়ালেই থাকবেন জিদান।  আগের চুক্তিতে রিয়ালে জিদানের বাৎসরিক পারিশ্রমিক ছিল ৪৩ লাখ ৫০ হাজার ইউরো।  কিন্তু টানা দুটি চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানো কোচকে নতুন চুক্তিতে তো আর একই পারিশ্রমিক দেওয়া যায় না? আর তাই, জিদানের পারিশ্রমিক দ্বিগুণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রিয়াল।  স্প্যানিশ গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, নতুন চুক্তিতে বছরে ৮০ লাখ ইউরোর কাছাকাছি পারিশ্রমিক পাবেন জিদান।
পাঁচ বছর পর রিয়ালকে লিগ শিরোপা জেতানো ছাড়াও দুটি চ্যাম্পিয়নস লিগ, দুটি উয়েফা সুপার কাপ এবং ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা জিতিয়েছেন জিদান।  চুক্তি নবায়নকে এরই পুরস্কার হিসেবে দেখছেন জিদান, ‘আমি সন্তুষ্ট, কারণ এটা ক্লাবের আস্থা রাখার প্রমাণ।  আমরা বেশ ভালো কাজ করেছি। ’
মাত্র ২০ মাসের কোচিং ক্যারিয়ারে থরে-বিথরে সাফল্য পাওয়ার নেপথ্যে খেলোয়াড়দের অবদানকেও বড় করে দেখছেন তিনি।  যদিও ধারাবাহিক সাফল্য না পেলে এসব চুক্তির যে কোনো মূল্য নেই, সেটাও ভালো করেই জানেন ৪৫ বছর বয়সী এ কোচ, ‘এখানে প্রতিদিনই উপভোগ করি।  আমি ভাগ্যবান যে দারুণ একটা স্কোয়াড পেয়েছি এবং তা নিয়ে আমি সন্তুষ্ট।  আপনি চাইলে ১০-২০ বছর মেয়াদি চুক্তি করতে পারেন, কিন্তু আমি জানি কোথায় আছি এবং কী করতে হবে।  আপনি চলে যেতে পারেন মাত্র এক বছরের ব্যবধানে। ’ সূত্র:  এএফপি