আজ বুধবার রাত ৯:৫৪, ২৩শে আগস্ট, ২০১৭ ইং, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জিলক্বদ, ১৪৩৮ হিজরী

বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, আরও বাড়বে!

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : আগস্ট ১২, ২০১৭ , ১০:৩৬ পূর্বাহ্ণ
ক্যাটাগরি : অর্থনীতি
পোস্টটি শেয়ার করুন

ভারতে পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য বৃদ্ধি করায় দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চলের বাজারে অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। ব্যবসায়ীরা জানান, ভারতে বন্যা ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে পেঁয়াজ উৎপাদন কম হওয়ায় পেঁয়াজ রপ্তানিতে মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে।

এদিকে কোরবানির ঈদের আগে এভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ক্রেতারা। এ দাম আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। বাজার মনিটরিং এর ব্যবস্থা থাকলে এভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়তো বলে অভিযোগ ক্রেতাদের।

খুচরা পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা বলছেন, কোরবানির ঈদ এলেই পেঁয়াজের চাহিদা বেড়ে যায়। আর এ চাহিদার কথা মাথায় রেখে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে প্রচুর পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানি করেছে ব্যবসায়ীরা। এ সব পেঁয়াজ সরবরাহ করা হয় রাজধানী ঢাকা, বগুড়া, চট্টগ্রাম, ফেনী, রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে।

বিক্রেতারা জানান, গত এক সপ্তাহ আগে ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হতো ১৬ থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে। আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হতো ২৮ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে।

সরেজমিনে দিনাজপুরের বাহাদুরবাজার এনএ মার্কেটে দেখা যায়, ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দরে। আর দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা কেজি দরে।

বাহাদুরবাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা ক্রেতা মোসলেমা বেগম জানান, গত এক সপ্তাহ আগে তিনি পেঁয়াজ কিনেছেন ১৬ থেকে ২০ টাকা কেজি দরে। এখন তাকে খুচরা ক্রয় করতে হচ্ছে ৩৫ টাকা কেজি দরে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি রপ্তানিকারক গ্রুপের আহ্বায়ক হারুন উর রশীদ হারুন মুঠো ফোনে জানান, ভারতে বন্যা ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে এবার পেঁয়াজ উৎপাদন কম হয়েছে। সেই কারণে বাংলাদেশের চাহিদা অনুযায়ী পেঁয়াজ দিতে পারছে না ভারত। গত জুলাই মাস পর্যন্ত ব্যবসায়ীরা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করেছে প্রতিটন ১৫০ ডলার মূল্যে। কিন্তু গত ৭ আগস্ট ভারত এই দাম বৃদ্ধি করে প্রতিটন পেঁয়াজের রপ্তানি মূল্য নির্ধারণ করে ২৫০ ডলার। আর গত বুধবার ভারতীয় রপ্তানিকারকরা প্রতি টন পেঁয়াজের মূল্য ৩০০ ডলার নির্ধারণ করেন। এ দাম আরও বাড়তে পারে।

হিলিস্থলবন্দরের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা রায়হান হোসেন জানান, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি কিছুটা কমেছে। এতে চিন্তার কোনো কারণ নেই। পর্যাপ্ত পেঁয়াজ আসছে। তবে দাম কিছুটা বেড়েছে।