স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে বাড়িতে ফিরছিলেন মেয়েটি, এরপর সোহেল…

মাগুরা সদর উপজেলার ঘোড়ানাছ গ্রামে এক যুবক প্রতিবন্ধী নারী ধর্ষিত হবার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় গ্রাম্য-মাতবররা সালিসের নামে সময়ক্ষেপন করায় ঘটনার পাঁচ দিন পর মঙ্গলবার সদর থানায় মামলা হয়েছে।

মামলায় ধর্ষিতার মা অভিযোগ করেছেন, ১২ জুলাই দুপুরে তার বাক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী দুই মেয়ে স্থানীয় একটি স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে সদর উপজেলার গোবিন্দপুর নিজ বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে ঘোড়ানাছ এলাকায় মাদকসেবী সোহেল মোল্যা বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বড় মেয়েটিকে আওয়াল মোল্যা নামে এক ব্যক্তির পরিত্যাক্ত বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। এ সময় সাথে থাকা অন্য বোন স্থানীয় প্রতিবেশীদের খবর দেন। খবর পেয়ে স্থানীয়রা মেয়েটিকে উদ্ধার করে। লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে অভিযুক্ত ধর্ষক সোহেল মোল্যা পালিয়ে যায়। পরে ইদ্রিস মেম্বর, রবিউল মোল্যা, কুদ্দুস মোল্যা, জয়েন উদ্দিন, আবুল কালামসহ কয়েকজন স্থানীয় মাতব্বর সালিশ মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেবার চেষ্টা করে। পরে মাগুরা সদর হাসপাতালের ওয়ান সটপ ক্রাইসিস সেলের সহযোগিতায় মাগুরা সদর থানায় মঙ্গলবার মামলা হয়।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আল হাসান জানান, পুলিশ আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে। এমন অপরাধকে সালিশের নামে যারা সময়ক্ষেপন করেছে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা চলছে।

You might also like