ইমামের গায়ে হাত তুলে যুবলীগ নেতা হলেন একঘরে!

ময়নসিংহের ত্রিশালে মসজিদের ইমামকে লাঞ্ছিত করার দায়ে যুবলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম শফিকে একঘরে করে রেখেছেন স্থানীয় লোকজন। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার সম্মুখ বৈলর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সম্মুখ বৈলর গ্রামের মসজিদের ইমাম মাওলানা নিজাম উদ্দিন মসজিদের কাছেই ১২ বছর আগে জমি কিনেন। অভিযোগ আছে সেই জমি বৈলর ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফি সম্প্রতি দখল করে নেওয়ার চেষ্টা করছেন। তারই জেরে শুক্রবার জুমার নামাজের আগ মুহুর্তে মসজিদের সামনে শফি ও তার লোকজনের সাথে তর্কে জড়ায় ইমাম নিজাম উদ্দিন। এক পর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে নিজাম উদ্দিনকে লাঞ্ছিত করে শফি।

এরপর এলাকাবাসী ক্ষুদ্ধ হয়ে শফিকে একটি দোকানে আটকে রেখে নামাজ পড়তে যান। পরে শফির পরিবারের লোকজন সামাজিক শালিসের মাধ্যমে এই বিচার করবেন বলে আশ্বাস দিয়ে তাকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়। একইদিন আছরের নামাজের পর স্থানীয়রা প্রতিবাদ সভা করে সিদ্ধান্ত নেয় শফিকে একঘরে করে সমাজচ্যুত করবেন।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, বৈলর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ, মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আশরাফ আলীসহ এলাকার গন্যমান্য ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

অবশ্য অভিযুক্ত শফি নিজেকে সমাজচ্যুত করা হয়নি দাবি করে বলেন, আমি রাজনীতি করি। আগামী বছর চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করবো। রাজনৈতিকভাবে হেয় করার জন্যই আমার প্রতিপক্ষের লোকজন এই অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

মজিদের ইমাম মাওলানা নিজাম উদ্দিন জানান, শফি দলীয় প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘ দিন যাবত আমার ক্রয় করা জমি দখল করার চেষ্টা করছেন। ঘটনার দিন কোনো কারণ ছাড়াই তিনি তার লোকজন নিয়ে আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। তাই সমাজের লোকজন তাকে একঘরে করে সমাজচ্যুত করেছেন।

বার্তাবাজার/এসজে

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর