২২, জুলাই, ২০১৮, রোববার | | ৯ জ্বিলকদ ১৪৩৯

‘থাম লুয়াং’গুহা জাদুঘর হবে

আপডেট: জুলাই ১২, ২০১৮

‘থাম লুয়াং’গুহা জাদুঘর হবে

থাইল্যান্ডের বহুল আলোচিত ‘থাম লুয়াং’ গুহাকে জাদুঘরে পরিণত করা হবে। এই গুহাতেই আটকে পড়েছিল দেশটির ১২ খুদে ফুটবলার এবং তাদের ২৫ বছরের কোচ। তিন দিনের অভিযানে গত ১০ জুলাইয়ের মধ্যে তাদের সবাইকে উদ্ধার করা হয়। ওই উদ্ধার অভিযানের চিত্র ঠাঁই পাবে জাদুঘরটিতে। ১১ জুলাই বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন অভিযানের প্রধান নারংসাক অসোততানকরণ।

তিনি বলেন, ‘থাম লুয়াং’ গুহার এই এলাকাটি হবে একটি জীবন্ত জাদুঘর। থাইল্যান্ডের আরেকটি আকর্ষণীয় স্থানে পরিণত হবে এটি। খুদে ফুটবলারদের কিভাবে উদ্ধার করা হয়েছে তা এখানে প্রদর্শন করা হবে। স্থাপন করা হবে তথ্যভাণ্ডার।

থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রযুত চান-ওচা বলেছেন, তার দেশ পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয়ে গুরুত্ব দেবে। এজন্য গুহার ভেতরে ও বাইরে অতিরিক্ত সতকর্তামূলক পদক্ষেপ নেবে কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গুহাটি আপাতত বন্ধ রয়েছে। কবে নাগাদ এটি খুলে দেওয়া হবে সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানানো হয়নি।

এদিকে উদ্ধারের পর প্রথমবারের মতো ভিডিওর মাধ্যমে শুভেচ্ছা জানিয়েছে কিশোররা। হাসপাতালের বিছানায় শুয়েই এক ভিডিওতে হাত নেড়ে অভিবাদন জানায় তারা। দেশটির সরকারি জনসংযোগ দফতর থেকে এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

গত ২৩ জুন ফুটবল অনুশীলন শেষে ২৫ বছর বয়সী কোচসহ ওই ১২ কিশোর ফুটবলার গুহাটির ভেতরে ঘুরতে গিয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টিতে গুহার প্রবেশমুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা আর বের হতে পারেনি। রবিবার (৮ জুলাই) থাইল্যান্ড সরকার শিশুদের উদ্ধারে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের নিয়ে স্মরণকালের সবচেয়ে বড় উদ্ধার অভিযান শুরু করে। তিন দিনের সফল অভিযানে উদ্ধার হয় কোচসহ ১২ খুদে ফুটবলার।

বর্তমানে চিংরাই প্রচনুক্রোহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১২ কিশোর ও তাদের কোচ। এখনও পরিবারের সদস্যরা তাদের সঙ্গে দেখা করতে পারেনি। তবে এক সংবাদ সম্মেলনে হাসপাতালের পরিচালক থানাপাইসাল বলেন, তারা সবাই সুস্থ আছেন। বিশেষ করে যারা শেষে ভর্তি হয়েছেন তারা তাড়াতাড়ি সুস্থ হচ্ছেন।