২২, জুলাই, ২০১৮, রোববার | | ৯ জ্বিলকদ ১৪৩৯

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ইয়াবা সেবন করিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ

আপডেট: জুলাই ৯, ২০১৮

পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ইয়াবা সেবন করিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ

ঢাকার ধামরাই উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ইয়াবা ট্যাবলেট সেবন করিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে।

৭ জুলাই, শনিবার উপজেলার কেলিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরদিন রবিবার উপজেলার সুয়াপুর থেকে একজনকে আটক করা হয়।

আটক রিমা আক্তার ধামরাইয়ের কেলিয়া গ্রামের বাসিন্দা। আর অভিযুক্ত দেবাশীষ ধামরাইয়ের গাইরাকুল গ্রামের বাসিন্দা।

এ ঘটনায় অপহরণ মামলার প্রধান আসামি দেবাশীষ চৌধুরীসহ অন্য কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, সাভারের গাজীরচট এলাকার পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রী শনিবার তার বান্ধবী, ধামরাইয়ের কেলিয়া গ্রামের রিমা আক্তারের বাড়িতে বেড়াতে আসে। এরপর রিমা আক্তার তার বন্ধু ধামরাইয়ের গাইরাকুল গ্রামের দেবাশীষ চৌধুরীর কাছে নিয়ে যায়। এরপর দেবাশীষ তার মালিকানাধীন মেসার্স অর্ণব এন্টারপ্রাইজের একটি গুদামঘরে নিয়ে যান। পরে ওই স্কুলছাত্রীকে ইয়াবা ট্যাবলেট খাইয়ে বন্ধুদের নিয়ে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণ করেন।

রবিবার খবর পেয়ে স্বজনরা ধর্ষিতাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। পরে অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করতে বলা হয়।

এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা রবিবার ধামরাই থানায় একটি মামলা করেন। এরপর ধামরাই থানা পুলিশ রিমা আক্তারকে আটক করে। তবে অভিযুক্ত দেবাশীষ চৌধুরীসহ তার অন্য সহযোগীরা আত্মগোপন করেছেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. কামাল হোসেন জানান, ধর্ষণে সহযোগিতা করার অপরাধে ওই ধর্ষিতার বান্ধবী রিমা আক্তারকে আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ছাড়া আসামি দেবাশীষকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।