আজ বুধবার সন্ধ্যা ৭:২০, ১৬ই আগস্ট, ২০১৭ ইং, ১লা ভাদ্র, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জিলক্বদ, ১৪৩৮ হিজরী

সাংবাদিকের উপর হামলায় মানববন্ধন চলাকালীন সময় মানববন্ধন তুলে নেয়ার হুমকি ও কার্যালয় তালা

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : মে ১৯, ২০১৭ , ১:৩২ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : গণমাধ্যম
পোস্টটি শেয়ার করুন

 ইমাম বিমান : গত ১৭ মে ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের হামালায় সাংবাদিক বাদলকে রক্তাক্ত যখম করার ঘটনায় জেলা বিএমএসএফ’র উদ্যোেগ গতকাল বৃস্পতিবার সকাল দশ টায় জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালীন সময় কাঠালিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনীর নেতা ” জামাই মনির ” মুঠোফোনে জেলা বিএমএসএফ’র সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলামকে মানববন্ধন বন্ধন কর্মসূচি বন্ধ করার হুমকি দেয়। মানববন্ধন কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার কারনে কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনী উপজেলা বিএমএসএফ’র কার্যালয়ে তালা ঝুলানো ও সাংবাদিককে মুঠোফোনে মানববন্ধন  কর্মসূচি বন্ধ করার হুমকিদাতা সন্ত্রাসী জামাই মনিরের গ্রেফতার দাবী করে বলেন সাংবাদিকের উপর হামলাকারীদের অবিলম্বে অাইনের অাওতায় এনে বিচারের দাবী জানান।

উক্ত মানববন্ধন কর্মসূচিতে ” বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ” বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় কমিটির  সাধারন সম্পাদক অাহমেদ অাবু জাফর উপস্থিত থেকে তিনি তার বক্তব্যে বলেন স্বাধীনতার ৪৬ বছর পেরিয়ে গেলেও কোন সরকার দেশের ৪র্থ/৫ম স্তরে থাকা জাতির বিবেক বলে যারা বিবেচিত অাজ সেই সাংবাদিকদের জন্য নিয়োগ নীতিমালা, সাংবাদিক নির্যাতন, নিপিড়ন, মিথ্যা মামলা সহ বিভিন্ন ভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। অাজ বিএমএসএফ’র ডাকে সাড়া দিয়ে বর্তমান সরকার সাংবাদিকের তালিকা প্রনয়নের জন্য কাজ করছে। এ বিষয় সাধারন সম্পাদক অাবু জাফর অারো বলেন, খুলনায় নারী সাংবাদিককে হত্যার হুমকি, নারায়নগঞ্জ, ঝালকাঠি, মাদারীপুর, বরগুনা সহ দেশে সাংবাদিকদের উপর হামলার পর ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান কতৃক সাংবাদিকের উপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন সহ বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে প্রশাসনের কর্মকর্তাদের দৃষ্টি অার্কষন করছি।

প্রসংঙ্গত কাঠালিয়ায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কিবরিয়া সিকদার ও তার লোকজন “বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ”  এর কাঠালিয়া উপজেলা কমিটির অাহবায়ক সাংবাদিক বাদলকে ডেকে নিয়ে হামলা করে।  স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান কিবরিয়া সিকদার সাংবাদিক বাদলকে ডেকে নিয়ে কিছু বলার অপেক্ষা না করে চেয়ারম্যান বাদলকে চর থাপ্পর মারা শুরু করে।  চেয়ারম্যান চর থাপ্পর শুরু করলে তার সাথে থাকা লোকজন বাদলকে রড দিয়ে এলোপাথারী মারধর শুরু করলে বাদলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত যখম হয়।  এ সময় হামলাকারীরা সাংবাদিক বাদলের কাছে থাকা তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন, ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সাংবাদিক বাদল স্থানীয়দের সহযোগীতায় রক্তাক্ত যখম অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে চলে অাসে। সাংবাদিক বাদল নিরাপত্তার অভাবে কাঠালিয়ায় চিকিৎসা নিতে না পেরে পালিয়ে অন্য কোথাও চিকিৎসা নিচ্ছে  । তবে তার ফোনটি উপজেলা চেয়ারম্যানের লোকজনের কাছে থাকায় তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে সাংবাদিক বাদলের কোন খবর পাওয়া যাচ্ছে না।   এ বিষয় স্থানীয় সাংবাদিক জানায় উপজেলা চেয়ারম্যান কিবরিয়া সিকদার ও গাজা সম্রাট জামাই মনির সাংবাদিক বাদলের ওপর হামলা চালায়। তাই এই হামলাকারীদের অবিলম্বে অাটক করে অাইনের অাওতায় এনে সুষ্ঠ তদন্তের দাবী  জানিয়েছেন ” বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ” বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় কমিটি।
পরবর্তীতে গোপন ভাবে অাহত অবস্থায় ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়। বর্তমানে সাংবাদিক বাদল জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ” বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ” এর ঝালকাঠি জেলা কমিটির সভাপতি অাজমীর হোসেন তালুকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, দৈনিক অজানা বার্তা পত্রিকার সম্পাদক এস এম রহমান কাজল সহ ঝালকাঠি জেলা উপজেলার সাংবাদিক বৃন্দ।