২৪, মে, ২০১৮, বৃহস্পতিবার | | ৯ রমজান ১৪৩৯

বেরিয়ে এলো মুস্তাফিজকে অবহেলা করার ঘটনা…

আপডেট: মে ১৬, ২০১৮

বেরিয়ে এলো মুস্তাফিজকে অবহেলা করার ঘটনা…

আজও মুম্বাই একাদশে জায়গা হয়নি মুস্তাফিজুর রহমানের। কেন যায়গা হয়নি মুস্তাফিজের এ নিয়ে কানাঘুষা বহু পুরোনো। তব অনেকের মতে বাংলাদেশী বলেইকি মুস্তাফিজের প্রতি অবহেলা? নাকি মুস্তাফিজ ছাড়াই জয় পাওয়াতেই নেয়া হয়নি তাকে?

তবে আজ ডুমিনির বদলে আবারও দলে জায়গা পেয়েছে কাইরন পোলার্ড। পোলার্ড কাইরড নিজেকে মেলে ধরতে না পারলেও কেন নেয়া হচ্ছে তার সমীকরন মিলছে না।

পরিসংখ্যান বলছে, পোলার্ড ৮ ম্যাচ খেলে প্রায় ১৫ গড়ে করেছেন মাত্র ৭৬ রান। আর মুস্তাফিজ মুম্বাইয়ের হয়ে এখন পর্যন্ত ৬টি ম্যাচ খেলেছেন মুস্তাফিজ। এই ছয় ম্যাচের পরিসংখ্যান বলছে মোট ২৩.৪ ওভার বল করেছেন দ্য ফিজ। ১৯৬ রান খরচায় নিয়েছেন ৭ উইকেট। সেরা বোলিং ৩/২৪। ২৮ গড় আর ইকোনমি রেট ৮.৩৪। একটি মাত্র ম্যাচেই উইকেটশূন্য ছিলেন। সেটিও বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে।

আর সর্বশেষ ম্যাচে সাকিবের সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে দারুণ বোলিং করেছিলেন। অষ্টম ওভারে নিজের প্রথম ওভার করতে এসে দিয়েছিলেন ৭ রান। এরপর ১৫তম ওভারে মুস্তাফিজকে আবার বোলিংয়ে আনেন রোহিত। এই ওভারটি দারুন করেন ফিজ।

মাত্র চার রান দেন এই ওভারে। ১৭তম ওভারে ফিজ তাঁর তৃতীয় ওভার করতে আসেন । ওই ওভারে মুস্তাফিজ এক রান দেন। সেই সঙ্গে একটি রান আউট। আর মুস্তাফিজ তাঁর শেষ ওভার করতে আসেন ম্যাচের ১৯তম ওভারে। ওই ওভারেই ইউসুফ পাঠানের উইকেট নিয়ে হায়দরাবাদের কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন ফিজ।

সব মিলিয়ে ৩.৪ ওভারে মুস্তাফিজ ৪.৯০ ইকোনিমিতে ১৮ রানে এক উইকেট নেন। ডট দেন ১২টি। হায়দরাবাদ গুটিয়ে যায় মাত্র ১১৮ রানে। কিন্তু সেই ম্যাচেও ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় মাত্র ৮৭ রানে গুটিয়ে যায় মুম্বাই। হায়দরাবাদ ৩১ রানে ম্যাচটি জিতে নেয়।

আজ ডেথ ওভারে মুস্তাফিজ-বুমরার জুটি কি বিপদজনক হতে পারতো না?

তাহলে কি সাকিবের মত বাংলাদেশী বলেই অবহেলার শিকার মুস্তাফিজ?
তাই বিপক্ষ দল, উইকেট এবং পরিস্থতি বিবেচনায় অফ ফর্মে থাকা পোলার্ডের খেলাটা কতটা যৌক্তিক মুস্তাফিজের জায়গায়?