আজ বুধবার দুপুর ১:১২, ২২শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৩রা রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯ হিজরী

চলনবিলে সাইক্লোন সেন্টার নির্মাণ করা হবে -ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রী মায়া

নিউজ ডেস্ক | বার্তা বাজার .কম
আপডেট : মে ২, ২০১৭ , ৫:০৬ অপরাহ্ণ
ক্যাটাগরি : জাতীয়,লিড নিউজ,সমগ্র বাংলা
পোস্টটি শেয়ার করুন

প্রভাষক মোঃ জয়নাল আবেদীন, নাটোর জেলা প্রতিনিধি : চলনবিলের মানুষ মাছ ও এক ফসলের উপর নির্ভরশীল। আর যদি এই এক ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয় তাহলে মানুষের দুঃখের সীমা থাকে না। আপনারা ধৈর্য্যরে সহিত এবারের দূর্যোগ মোকাবেলা করতে পেরেছেন এজন্যে সকলকে ধন্যবাদ। চলনবিলের কৃষকের পাশে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা রয়েছেন। কারণ বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধন সরকার। সোমবার দুপুরে চলনবিলের দূর্গম এলাকা ডাহিয়া বাজারে ঢলের পানিতে ক্ষতিগ্রস্থ প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কালে ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীর বিক্রম এমপি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি চলনবিলের দূর্যোগ মোকাবেলায় একটি সাইক্লোন সেন্টার নির্মাণের ঘোষণা দেন। এদিকে ত্রাণ বিতরণে স্বজনপ্রীতি ও দলীয় করণ হয়েছে বলে অভিযোগ করেন স্থানীয় বাজারের কৃষকরা।
উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় ডাহিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, টানা প্রবল বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে সিংড়া উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার ১৫’শ হেক্টর বোরো ধান ও প্রায় আড়াই ‘শ’ হেক্টর ভূট্রা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এতে ৭টি গ্রামের প্রায় ৫হাজার কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। সোমবার উপজেলা প্রশাসন ও ২নম্বর ডাহিয়া ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে চলনবিলের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাম ডাহিয়া, বেড়াবাড়ী ও কাউয়াটিকরী গ্রামের ৩‘শ ক্ষতিগ্রস্থ প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে ৩০ কেজি চাউল ও ৫‘শ করে টাকা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া প্রধান অতিথি থেকে এই বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন। অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী অ্যাড. জুনাইদ অহমেদ পলক, ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিব শাহ কামাল, নাটোর সদর আসনের সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল, সিংড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক, পৌর মেয়র জান্নাতুল ফেরদৌস, ইউএনও মোহাম্মদ নাজমুল আহসান প্রমূখ।
এদিকে ডাহিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুল আহাদ, সাইফুল ইসলাম, কামাল উদ্দিন সহ অনেকে অভিযোগ করে বলেন, ত্রাণ বিতরণে স্বজনপ্রীতি ও দলীয় করণ হয়েছে। তারা সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তা করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।
ডাহিয়া ইউপি চেয়ারম্যান এমএম আবুল কালাম স্বজনপ্রীতির অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, পর্যায়ক্রমে ক্ষতিগ্রস্থ সকলকে সহায়তা করা হবে।
ইউএনও মোহাম্মদ নাজমুল আহসান বলেন, আজ শুধু ৩‘শ জন ক্ষতিগ্রস্থ প্রান্তিক কৃষককে ত্রাণ দেয়া হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে সকলকে এর আওতায় আনা হবে বলে পরিকল্পনা রয়েছে। আর নির্দিষ্ট ভাবে অভিযোগ পেলে স্বজনপ্রীতির বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।