২৫, মে, ২০১৮, শুক্রবার | | ১০ রমজান ১৪৩৯

খালেদার মামলা সম্পর্কে জানেন না অ্যাটর্নি জেনারেল

আপডেট: মে ১৬, ২০১৮

খালেদার মামলা সম্পর্কে জানেন না অ্যাটর্নি জেনারেল

দুর্নীতি মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নামে কয়টি মামলা আছে কিংবা কয়টি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে তা জানেন না অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বুধবার বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আপিল বিভাগ বহাল রাখার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা জানান তিনি।

রাষ্ট্রের প্রধান এই আইন কর্মকর্তা বলেন, খালেদা জিয়ার কয়টি মামলা আছে কিংবা কয়টি মামলায় তিনি গ্রেপ্তার আছেন আমি তো তা বলতে পারবো না। এটা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা বলতে পারবেন।

মাহবুবে আলম বলেন, সচরাচর কোনো আসামির যদি একাধিক মামলা থাকে, তাহলে সেসব মামলায় জামিন না পাওয়া গেলে মুক্তি পাওয়া যায় না।

তবে খালেদা জিয়ার অন্য মামলার বিষয়ে জানতে তাঁর আইনজীবী জয়নুল আবেদিনের জানান, খালেদা জিয়াকে আরও ছয়টি মামলায় জামিন নিতে হবে। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে কুমিল্লায় তিনটি, ঢাকায় দুটি এবং নড়াইলে একটি মামলা রয়েছে। হত্যা, বিশেষ ক্ষমতা আইন ও বিস্ফোরক আইনে কুমিল্লায় তিনটি মামলা করা হয়েছে। আর ঢাকার দুটি এবং নড়াইলের মামলা হচ্ছে মানহানির।

সকালে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এই রায় দেন।

খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও রাষ্ট্রপক্ষ পৃথক আপিল করেছিল। দুটি আপিলই খারিজ করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। ফলে খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন বহাল রইল।

আদেশে আপিল বিভাগ বলেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাইকোর্টে পেপারবুক প্রস্তুত। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চকে আপিল (দণ্ডাদেশের রায়ের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল) আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন সর্বোচ্চ আদালত।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন বহাল থাকলেও আরও কয়েকটি মামলায় তাঁকে জামিন নিতে হবে। সে জন্য তাঁর কারামুক্তিতে কিছু সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের পৃথক আপিলের ওপর শুনানি শেষে ৯ মে আপিল বিভাগ রায়ের জন্য ১৫ মে দিন রেখেছিলেন। এদিন (১৫ মে) অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ফের যুক্তিতর্ক করার জন্য আদালতে আবেদন করেন। পরে তাঁর যুক্তিতর্ক শুনে আজ (১৬ মে) রায় ঘোষণার দিন ঠিক করেন আপিল বিভাগ।

এই মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশ দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। বয়স ও সামাজিক মর্যাদার কথা বিবেচনা করে আদালত তাঁকে এই দণ্ডাদেশ দেন। এরপর থেকে খালেদা জিয়া নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।