২৩, অক্টোবর, ২০১৮, মঙ্গলবার | | ১২ সফর ১৪৪০

২৪৬টি কেন্দ্রের চূড়ান্ত ফলাফল এসে গেছে!দেখে নিন এখন পর্যন্ত কোন দল এগিয়ে রয়েছে!

আপডেট: মে ১৫, ২০১৮

২৪৬টি কেন্দ্রের চূড়ান্ত ফলাফল এসে গেছে!দেখে নিন এখন পর্যন্ত কোন দল এগিয়ে রয়েছে!

বিপুল পরিমান ভোটে এগিয়ে রয়েছে আওয়ামীলীগ ।খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট শেষে চলছে গণনা। সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত টানা ভোট গ্রহণ চলে। এরই মধ্যে বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে নির্বাচনের ফলাফল আসতে শুরু করেছে।

খুলনার নির্বাচনে মেয়র পদে এবার পাঁচজন প্রার্থী। আওয়ামী লীগের তালুকদার আবদুল খালেক নৌকা এবং বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

এ ছাড়া ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মুজ্জাম্মিল হক হাতপাখা, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) মিজানুর রহমান বাবু (কাস্তে) এবং জাতীয় পার্টির এস এম শফিকুর রহমান (লাঙ্গল) মেয়র পদে প্রার্থী হয়েছেন। তবে ভোটের লড়াইটা আওয়ামী লীগ আর বিএনপি প্রার্থীর মধ্যেই।

বিভিন্ন কেন্দ্র থেকে পাওয়া সর্বশেষ বেসরকারি ফলাফল-
মোট কেন্দ্র সংখ্যা: ২৮৯
প্রাপ্তফল: ২৪৬
আওয়ামী লীগ প্রার্থী: ১,৫১,০৯৯ টা
বিএনপি প্রাথী: ৯৩,৫৬০ টা

নগরীরর ২৮৯টি কেন্দ্রে এ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এখন চলছে গণনার কাজ। গণনা শেষে যত দ্রুত সম্ভব ফরঅফল ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাচনী কর্মকর্তা।

জালভোট ও অনিয়মের অভিযোগে দুটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সাময়িক স্থগিত করা হয়েছে। তবে রিটার্নিং কর্মকর্তা ইউনুস আলী বলেন, ‘৩-৪টি কেন্দ্রে অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি। তাতক্ষনিকভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বিষয়টি দেখতে আদেশ দেয়া হয়েছে।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির বলেন, লিখিতভাবে কোনো অভিযোগ পাইনি, তবে আমরা শুনেছি। খোঁজ নিয়ে দেখেছি দু-একটি জায়গায় বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে। আমরা সেখানে দায়িত্বরত কর্মকর্তাকে জানিয়েছি এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

এদিন নিজ নিজ ভোট কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক ও নজরুল ইসলাম মঞ্জু। দুই প্রার্থীই নিজেদের জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
উল্লেখ্য, খুলনা সিটিতে মেয়র পদে পাঁচজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন, সংরক্ষিত ১০টি ওয়ার্ডে ৩৯ জন এবং ৩১টি সাধারণ ওয়ার্ডে ১৪৮ জন কাউন্সিলর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
খুলনা সিটি নির্বাচনে ৪৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এ নগরীতে মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ২৮৯টি ও ভোটকক্ষ এক হাজার ৫৬১ জন। নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন, যার মধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ জন ও নারী ভোটার ২ লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন।