উদ্বোধনের আগেই ‘সোনার তরী’র উড্ডয়ন নিয়ে সংশয়!

উদ্বোধনের আগেই উড্ডয়ন নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে বিমানের অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার ‘সোনার তরী’র। কর্তৃপক্ষ মুখ না খুললেও বিমানের পরিকল্পনা ও বিপণন বিভাগের কর্মকর্তাদের বিষয়টি নিয়ে প্রায় ঘুম হারাম হয়ে গেছে।

আগামীকাল শনিবার (২৮ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘সোনার তরী’ ও ‘অচিন পাখি’র উদ্বোধন করবেন। বিমানের মোবাইল অ্যাপসেরও উদ্বোধন করবেন তিনি। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের নতুন উড়োজাহাজ ‘সোনার তরী’ যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটল থেকে ২১ ডিসেম্বর দেশে আসে। ওইদিন সন্ধ্যা ৬টা ৩ মিনিটে বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনারটি হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। একই মডেলের অপর নতুন উড়োজাহাজ ‘অচিন পাখি’ ২৪ ডিসেম্বর অবতরণ করে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সূত্রে জানা গেছে, সুপরিসর উড়োজাহাজ নিয়ে নতুন গন্তব্যে পাখা মেলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। এরই ধারাবাহিকতায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ম্যানচেস্টারের উদ্দেশে আগামী ৫ জানুয়ারি উড়াল দেয়ার কথা অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার ‘সোনার তরী’র।

উড্ডয়ন উপযোগী অবস্থায় ঢাকায় আসে উড়োজাহাজটি। আসার পর দেখা দেয় সমস্যা। উদ্বোধনের দুদিন আগেই বিকল হয়ে যায় এর ভিডিও ডিসপ্লে ও ওয়াইফাই ব্যবস্থা। ভিডিও ও ওয়াইফাই সার্ভিস ছাড়া বিশেষ বৈশিষ্ট্যের এ ড্রিমলাইনার মূল আকর্ষণ হারায়। বিমানের কারিগরি শাখা থেকে ভিডিও সার্ভিস ও ওয়াইফাই সেবা ছাড়া উড়োজাহাজটি চলাচলের অনুপযোগী বলে জানানো হয়।

ঢাকায় পৌঁছানোর দুদিন পর অর্থাৎ ২৪ ডিসেম্বর থেকে এ নিয়ে বিমানের পরিচালকরা গোপন সভা করেন একাধিকবার। যদিও পরে বিষয়টি জানাজানি হয়ে যায়। এ বিষয়ে গণমাধ্যমের কাছে মুখ খুলতে নিষেধ করেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও। যে কারণে বিমানের জনসংযোগ শাখার প্রধান কর্মকর্তা গণমাধ্যমকর্মীদের ফোন ধরা থেকে বিরত আছেন।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স সূত্রে আরও জানা যায়, ঢাকা থেকে এরই মধ্যে উড়োজাহাজটির ম্যানচেস্টার যাওয়ার সিডিউল নিশ্চিত করা হয়েছে। টিকিটও বিক্রি করা হয়েছে। ইন্টারন্যাশনাল সিভিল এভিয়েশন অর্গানাইজেশন (আইকাও) ঢাকা ও ম্যানচেস্টার রুটের অনুমোদন দিয়েছে। সে অনুযায়ী ৫ জানুয়ারি নতুন গন্তব্যে যাওয়ার কথা ‘সোনার তরী’র। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতিতে অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে এর পাখা মেলার। এ মুহূর্তে করণীয় বুঝে উঠতে পারছেন না বিমানের শীর্ষ কর্তারা।

‘সোনার তরী’র ভিডিও ও ওয়াইফাই ব্যবস্থা অচল হয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রধান প্রকৌশলী কায়সার জামান বলেন, সমস্যা হলেও সেটি সারিয়ে ফেলা হয়েছে। ‘সোনার তরী’ এখন উড্ডয়ন উপযোগী। এয়ারক্রাফটিতে এখন আর কোনো সমস্যা নাই। তবে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এখনও কারিগরি ত্রুটি ঠিক করা সম্ভব হয়নি।

বিষয়টি অনভিজ্ঞতার ফসল হিসেবে বর্ণনা করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সাবেক পরিচালনাপর্ষদ সদস্য ও এভিয়েশন বিশেষজ্ঞ কাজী ওয়াহিদুল আলম। তিনি বলেন, যেকোনো এয়ারলাইন্সের একটি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা এবং তা বাস্তবায়নের সক্ষমতা থাকা অত্যাবশ্যক। আমরা দেখছি সব ক্ষমতা না তৈরি করেই বিমান একের পর এক অত্যাধুনিক উড়োজাহাজ বহরে যোগ করে যাচ্ছে।

যে হারে বহরে এয়ারক্রাফট যোগ হচ্ছে সেই হারে সক্ষমতা বাড়ছে না বলেই সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের ওপর জোর দেন তিনি। বর্তমানে বিমানের আন্তর্জাতিক ১৫টি রুটের মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের কুয়েত, দাম্মাম, দোহা, মদিনা, রিয়াদ, জেদ্দা, আবুধাবি, দুবাই ও মাস্কাটে ফ্লাইট রয়েছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ব্যাংকক, কুয়ালালামপুর ও সিঙ্গাপুর এবং স্বল্প দূরত্বে কলকাতা ও কাঠমান্ডুতে ফ্লাইট চালাচ্ছে বিমান। এর বাইরে ইউরোপে কেবল লন্ডন রুটে ফ্লাইট পরিচালনা হচ্ছে।

এশিয়া, ইউরোপ ও আমেরিকাসহ একসময় ২৮টি গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করত বিমান। কিন্তু উড়োজাহাজ সংকটসহ অব্যাহত লোকসানে বেশকিছু গন্তব্যে ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যায়। বিমানের বহরে বর্তমানে উড়োজাহাজ রয়েছে ১৮টি। এর মধ্যে নিজস্ব ১২টি। বাকি ছয়টি লিজে আনা। এছাড়া কানাডা থেকে কেনা তিনটি ড্যাশ-৮ দেশে আসছে আগামী বছর।

বার্তাবাজার/কেএ

বার্তা বাজার .কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
এই বিভাগের আরো খবর